সরষে রুই রেসিপি । shorshe rui maach recipe

সর্ষে রুই মাছের ফিশ কারি রেসিপি আপনারা হয়তো বাড়িতে নিশ্চই ট্রাই করেছেন। আজকে আমাদের রেসিপি সরষে দই বা মাস্টার্ড ফিশ কারি।

Shorshe Rui Maach Recipe Ingredients

১ কেজি রুই মাছ

২ চা চামচ সরষের তেল

১ চা চামচ হলুদ গুঁড়ো

স্বাদমতো নুন

৭৫ গ্রাম কালো সরষে

১৫০ গ্রাম সাদা সরষে

১ চা চামচ পোস্ত

১০০ গ্রাম নারকেল কুড়ো

৫ টি কাঁচা লঙ্কা’

জল

১ চা চামচ সরষের তেল

মিহি ভাবে বেটে নিয়ে ছেঁকে নিতে হবে

১০০ মিলি সরষের তেল

১/২ চা চামচ কালোজিরে

২ চা চামচ আদা রসুন বাটা

১ চা চামচ হলুদ গুঁড়ো

২ টি ছোট টমেটোর বাটা

স্বাদমতো নুন

১ টি টমেটো

২ টি কাঁচা লঙ্কা

তাহলে সরাসরি বানানোর জন্য আমি এখানে নিয়েছি। এক কেজি রুই মাছ যেহেতু এখানে পিস গুলো একটু বড় তাই এক কেজি মাছ আমার ছোট পিসি হয়ে গেছে এবার মাছগুলো একটু ম্যারিনেট করে নিচ্ছি। ম্যারিনেশনটা খুবই সিম্পল।

আমরা যেরকম বাড়িতে করে থাকি। সামান্য তেল হলুদ আর নুন দিয়ে ম্যারিনেট করে নেব। আচ্ছা এখানে রয়ের বদলে আপনারা কাতলা মাছ নিয়ে নিতে পারেন আর রুই বা কাতলা না পেলেও বক্স অফিসে এই রেসিপিটা আপনারা ইজিলি করে নিতে পারবেন এই মাছগুলো মেরিনেট করা হয়ে গেলে আমি মাছগুলোকে ফ্রাই করে নেবো আর তার আগে সমস্যাটা কী কী দেখে নেবেন সেটা দেখে নিন ।

প্রথমে দিচ্ছি 75 গ্রাম কালো সরষে এখানে আপনাদের কালো সরষে পরিমাণ একটু কমই রাখতে হবে। আর তার সাথে দিচ্ছি দেড়শ গ্রাম সাদা সরষে এই মাপটা কিন্তু আপনারা অবশ্যই খেয়াল রাখবেন তারপরে দিয়ে দেবো এক চা চামচ পোস্ত।

আচ্ছা এবার এখানে দিতে হবে একশ গ্রাম ফ্রেশ নারকেল গুঁড়ো আর ঝালের জন্য এখানে দিয়ে দেব কাঁচালঙ্কা আচ্ছা এবার এখানে দিয়ে দেব পরিমাণ মতো জল এখানে জলটা আপনাদের একটু কমই দিতে হবে না হলে পেজ টা মিহি ভাবে হবে না আর পেশ করার আগে এখানে ফাইনাল দিয়ে দেব।

এক চা চামচ সর্ষের তেল দেখতেই পাচ্ছেন পেজ থেকে একদম মিহি ভাবে হয়ে গেছে। আর রেস্টুরেন্টের মতো একদম স্মুদি বানানোর জন্য আমাদের এই পেজ তাঁকে ছেঁকে নিতে হবে।

সেজন্য আমি এখানে আর একটু জল ব্যবহার করছি যাতে আমাদের ছাদে কোনও রকম অসুবিধা না হয়। বাড়িতে গিয়ে চা ছাঁকনি তাঁকে সেটা দিয়ে আপনারা খুব ইজিলি তাঁকে ছেঁকে নিতে পারবেন।

আর একটু ভালো করে ছেঁকে নিলেই সর্ষের খোলা আর নারকেলের অবশিষ্ট ছাড়া কিছুই থাকবেনা। আর এখানে ওয়েস্টেজ হওয়ার কোনও রকম ভয় থাকছে না।

আর ঠিক একই ভাবে আমি পুরো পেজ থেকে চেয়ে নিচ্ছি নারকোলের দুধের সাথে সর্ষের এই কম্বিনেশনটা কিন্তু দারুণ সুন্দর লাগে। অতি অবশ্যই কিন্তু এটা আপনারা ট্রাই করবেন আশা করি আপনাদের এতক্ষণে বুঝতে কোনও রকম অসুবিধা হয়নি।

তাহলে এবার বাকি রেসিপিটা দেখে নিন এই মাছগুলো বোঝার জন্য পাত্রে নিয়ে নিচ্ছি৷ একশ মিলি সর্ষের তেল আর তেল টা যখন একটু মিডিয়াম গরম হয়ে যাবে আমাদের যে ম্যারিনেট করা মাছগুলো ছিল সেগুলোর মধ্যে দিয়ে দিচ্ছি ।

আচ্ছা এখানে আমি বলে রাখি আমাদের খুব বেশি লাল করে ভাজতে হবে না।যখনই দেখবেন দুদিকে এরকম হালকা কালার চলে আসছে। আমাদের মাছ গুলোকে তুলে নিতে হবে।

আর ঠিক একই ভাবে আমি বাকি মাছগুলো ভেজে নিচ্ছি ফাইনালে আমরা গ্রেভিটা বানিয়ে নেব। তার জন্যই মাছ ভাজার তেলেই আমাদের দিতে হবে। হাফ চা চামচ কালোজিরে কালোজিরেতে একটু ভাল গন্ধ ছেড়ে দিলে তাতে দিতে হবে দু চা চামচ আদা রসুন বাটা এবার গ্যাসে প্যান থেকে শুরু করে আদা রসুন বাটা কে আপনাদের ভালো করে ভেজে নিতে হবে আর ভাজা হয়ে গেলে এখানে আমাদের একটাই মশলা দিতে হবে।

সেটা হচ্ছে হলুদ গুঁড়ো আর হলুদ গুঁড়ো দেওয়ার সাথে সাথে একবার ভাল করে মিশিয়ে নিয়ে আমাদের এখানে দিতে হবে একটু টমেটো বাটা আর অতি অবশ্যই এখানে নুনটা দিতে ভুলবেন না। এবার গ্যাসের ফ্লেম টাকে স্লো করে 4-5 মিনিট এটাকে খুব ভালো করে আপনাদের মিশিয়ে নিতে হবে যতক্ষণ না টমেটো থেকে তেল ছেড়ে আসছে।

যখনই দেখবেন এই টমেটো পেস্ট এরকম দানাদানা মতো হয়েছে তখনই বুঝবেন এই টমেটো পেস্ট খুব ভাল ভাবে খুন হয়ে গেছে। আর তেল টা দেখতে পাচ্ছেন বেশ অনেকটাই ছেড়ে গেছে। এবার আমাদের যে সরষে নারকেল বাটার মিশ্রণটা ছিল সেটার মধ্যে দিয়ে দিচ্ছি।

এবার গ্যাসের দাম থাকে। মিডিয়াম করে 7-8 মিনিট আপনাদের খুব ভালোভাবে মিশিয়ে নিতে হবে গার্নিসের জন্য এখানে কয়েকটা টমেটো জুস দিয়ে দিচ্ছি।

ফাইনালে আমাদের যে ভাজা মাছগুলো ছিল সেগুলোর মধ্যে দিয়ে দেব। মাছগুলো দেওয়ার পরে যদি দেখেন ছবিটা খুবই কম আছে সেক্ষেত্রে আপনি একটু জল ব্যবহার করতে পারেন।

যদি এরকম বড় সাইজের মাছ থাকে তাহলে সেটাকে বারবার পাল্টে নেওয়ার চেষ্টা করবেন না। তাহলে কিন্তু মাছগুলো ভেঙে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। হাবিবা করে থাকে দুই সাইডে ধরে এ ভাবেই ঘুরিয়ে নিলেই হবে আর খুবই লো ফ্লেমে এটাকে আস্তে আস্তে এই ভাবে ফুটতে দেবেন। দেখবেন আস্তে আস্তে কালার টাও চলে আসছে আর তেলটা ছোড়া শুরু হয়ে যাচ্ছে।

আর যখনই দেখবেন এটা একদম সেমি গ্রেভি হয়ে গেছে উপর থেকে কয়েকটা লঙ্কা ছড়িয়ে দিচ্ছি যে গার্নিশ তাহলে আমাদের রেস্টুরেন্টে সর্ষে রুই বা মাস্টার ফিশ কারি রেডি পরিবেশন করার জন্য।

আশা করি সিম্পল রেসিপি টা বুঝতে আপনাদের কোনোরকম অসুবিধা হয়নি। আর যদি নারকোলের জন্য আপনাদের প্রবলেম হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে আপনার নারকেলের দুধও ব্যবহার করে দিতে পারেন। যেগুলো বাজারে খুবই ইয়াবা লেবেল।

তাহলে অবশ্যই রেসিপিটি আপনার বাড়িতে ট্রাই করবেন। আর ভালো লাগলে আমাকে কিন্তু অবশ্যই কমেন্ট এ জানাবেন। ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন।

Leave a comment