নীর ধোসা রেসিপি । Neer Dhosa Ingredient Recipe Bengali

স্বাস্থ্যকর জলখাবার বা ব্রেকফাস্ট এর জন্য এই রেসিপিটা আপনারা নিশ্চই ট্রাই করতে পারেন খুবই কম সময় আপনারা এই রেসিপিটা বানিয়ে নিতে পারবেন সাথে সুস্বাদু চাটনি রেসিপি আপনাদের বলবো আর রেসিপিটা পারফেক্ট করার জন্য সাথে অবশ্যই থাকবে অনেক টিপস আর ট্রিকস.

Neer Dhosa Ingredient Recipe Bengali

৩০০ গ্রাম চাল / 300g Rice

ভিজিয়ে রাখুন ৬-৭ ঘন্টা / Soak For 6-7 Hours Green Chutney

২ গুচ্ছ ধনেপাতা / 2 Bunch Coriander

৮-১০ কাঁচা লঙ্কা / 8-10 Green

১/২ কাপ কুড় নারকেল / 1/2 Cup Greated Coconut

স্বাদমত নুন / Salt to taste

টি করে কাটা আদা / 3 Slice of Ginger

তেঁতুল গোলা জল / Tamarind Water

জল / WaterTomato Chutney

৩০০ গ্রাম টমেটো / 300g Tomato

২ চা চামচ সাদা তেল / 2 tsp Refined Oil

১০ টি রসুনের কোয়া / 10 ea Garlic Cloves

৪-৫ টি ছোট পাতলা করে কাটা আদা / 4-5 Small Slice of Ginger

স্বাদমত নুন / Salt to taste

১/২ চা চামচ গোটা গোলমরিচ / 1/2 tsp Whole Black Pepper

১/২ চা চামচ মৌরি / 1/2 tsp Fennel

১/২ চা চামচ কাশ্মীরি লঙ্কার গুঁড়ো / 1/2 tsp Kashmiri Chilli Powder

কুড় নারকেল / Greated Coconut

স্বাদমত চিনি / Sugar to Taste

তেঁতুল গোলা জল / Tamarind Water

১ চা চামচ বিট নুন / 1 tsp Balck SaltTadka

৩০ মিলি তেল / 30 ml Oil

১.৫ চা চামচ কালো সরষে / 1.5 tsp Balck Mustard

১ চা চামচ কলাইয়ের ডাল / 1 tsp Urad Dal

কারিপাতা / Curry Leaves

১/২ চা চামচ চানা ডাল / 1/2 tsp Channa Dal

৮-১০ টি শুকনো লঙ্কা / 8-10 Whole Red Chillies

১ কাপ নারকেল / 1 Cup Coconut

স্বাদমত নুন / Salt to Taste

জল / Water

তেল ব্রাশ করেনিন / Oil Brush

আমি সবার প্রথম তিনশ গ্রাম চাল নিয়ে নিচ্ছি। এটা আপনারা যে কোনও চাল নিয়ে নিতে পারেন বাট আরও ভাল হবে যদি আপনার এই রাইস নিয়ে নেন আমি এখানে রেগুলার চালিয়ে নিয়ে নিয়েছি সেটাকে ভালো করে জল দিয়ে ধুয়ে নিচ্ছি৷ আর এটা আপনারা ততক্ষণ ধরে নেবেন যতক্ষণ না জলটা এভাবে পরিষ্কার হয়ে আসছে খুব ভাল হয় যদি আপনারা ওনার নাটক করে রাখতে পারেন আর যদি সময় কম থাকে তাহলে এক থেকে দেড় ঘণ্টা অতি অবশ্যই ভিজিয়ে রাখবেন।

এবার আমি আপনাদের সহজ চাটনির রেসিপি করে দেখাবো প্রথমে আমি গ্রিন চাটনি করে দেখাচ্ছি আর তার জন্য লাগছে দুই আঁটি ধনেপাতা আট থেকে কাঁচা লঙ্কা, হাফ কাপ গ্রেট করা নারকোল অবশ্যই স্বাদমতো নুন।

দুই থেকে তিন স্লাইস আদা আর সামান্য একটু তেঁতুল জল। এরপর খুব সামান্য জল দিয়ে ঢেকে ভালো করে পেস্ট করে নিন। এবার আমি আপনাদের টমেটোর চাটনি বা রেড চাটনি এটা করে দেখাব তার জন্য টমেটোগুলোকে আপনাদের কীভাবে রাখলে কেটে নিতে হবে।

আর কাটা হয়ে গেলে ননস্টিক প্যানে তেল নিয়ে টমেটোগুলোকে এখানে দিয়ে দিন।আর সাথে দিয়ে দিন কিছু রসুন আর আদা আর অবশ্যই এখানে স্বাদ মতো নুন দিতে ভুলবেন না৷ এটা আপনাদের ততক্ষণ করতে হবে যতক্ষণ টমেটোটা একদম গলে যাচ্ছে। আর একটু ঘুরে গেলেই দিতে হবে হাফ চা চামচ গোটা গোলমরিচ হাফ চা চামচ মৌরি আর রঙের জন্য সামান্য একটু কাশ্মীরি চিলি পাউডার আর এই টমেটোগুলো করার সময় কোনও রকম জল কিন্তু আপনারা ব্যবহার করবেন না।

2-3 মিনিট করলেই দেখবেন টোটা ঠিক এই ভাবে গলে যাবে এবার এই মিশ্রণটি ঠান্ডা করে মিক্সিতে দিয়ে দিচ্ছি আর পেশ করার আগে এক করে দিন গ্রেট করা নারকোল স্বাদ মতো চিনি অল্প একটু তেঁতুল জল আর সব শেষে এক চা চামচ বিট নুন। এবার কোনও রকম জল না ব্যবহার করে এটাকে ভালো করে পেস্ট করে নিন।

এবার পেস্ট করার পরে এই চারটি আমি আপনাদের দেখাচ্ছি। আশা করি ঘনত্ব কতটা রাখতে হবে সেটা আপনারা নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন। এর উপর যে তোর কাঁটা দেওয়া হয় সেটা কিভাবে বানাতে হয় দেখেনি৷ বেসিকালি যে কোনও 34 জনের জন্য উপকরণ গুলি লাগে বিতর্কটা বানানোর জন্য তেলে কোন সময় কী দিতে হয় সেটা জেনে নিন তার জন্য প্রথমে তর্ক মানে আমি নিয়েছি সাদা তেল এবার তেলটা একটু গরম হলেই দিয়ে দেব দেখতে চামচ সরষে এক চা চামচ গুঁড়ো ডাল বাংলায় বললে কলাইয়ের ডাল এরপরে দিয়ে দিতে হবে জানা ডাল তারপর ফাইনাল শুকনো লঙ্কা গুঁড়ো দিয়ে ভাল করে একটু ভেজে নিন।

এরপর ফাইনালে গ্যাসের ফ্লেম কম করে দিয়ে দিন গাড়ি পাতাগুলো। তার পর যখনই দেখবেন লঙ্কা গুলো আস্তে আস্তে কালো হয়ে আসছে তখনি গ্যাসটা বন্ধ করে এই তরকা ব্যাঙ্ক থেকে তুলে নিতে হবে। তারপর চাটনি গুলোর উপর তেল ছড়িয়ে ভাল করে ছড়িয়ে দেবেন।

আশা করি নিশ্চয়ই দেখতে পেলেন এই চাটনি গুলো বানানো কতটা সিম্পল আর আপনার ছেলেকে ডিপ ফ্রিজে ই রেখে দিতে পারেন 3-4 দিন মতো আচ্ছা এবার দেখে নিন এই নির্দোষ আপনারা কীভাবে বানাবেন তার জন্য প্রথমে আমরা যে চালটা ভিজিয়ে রেখেছিলাম তার থেকে আমি জলটা ফেলে দিয়েছি।

নিশ্চই দেখতে পাচ্ছেন এই চালগুলো বেশি এখন অনেকটাই ফুলে গেছে এই চালটা আমি ডাইরেক্টলি নিয়ে নেব মিক্সিতে। আর নেওয়া হয়ে গেলে দিতে হবে। গ্রেট করা নারকেল আর সাথে অবশ্যি দিয়ে দেবেন স্বাদমতো নুন আর আপনারা চাইলে নারকেল টা স্কিপও করতে পারেন। এরপর সামান্য একটু জল দিয়ে রেখে ভালো করে পেস্ট করে নিন।

আর পেজ টা কতটা স্মুথ করতে হবে সেটাও দেখে নিন৷। আশা করি নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন এটা এখন কতটা স্মুথ হয়েছে। যেহেতু এটা ভালো তাই এখানে আমি দিয়ে দিচ্ছি জল আপনারা তো সবাই জানে নির্মাণে জল। তাই এখানে জলের পরিমাণটা খুবই ইম্পরট্যান্ট তিনশ গ্রাম চালের জন্য আপনাদের এক লিটার জল দিতে হবে।

আর এটা ঠিক এতটাই পাতলা হবে এবার ধোসা বানানোর জন্য আমি এখানে ননস্টিকের চাটু নিয়ে নিচ্ছি। আর তার পর সামান্য একটু তেল ব্রাশ করে নিচ্ছি। আচ্ছা এখানে ছোট্ট টিপস এই ধোসা বানানোর জন্য চটকে আপনাদের ভাল করে গরম করে নিতে হবে।আর গরম হয়ে গেলে এই ধোসা আমি একটু একটু করে ঢেলে নিতে হবে।

এইভাবে ঘুরিয়ে নিলে দেখবেন ভাল ভাবে এটা ছড়িয়ে যাবে। আর যদি কোন অংশ বাদ থেকে যায় তাহলে সেখানে এইভাবে দিয়ে দেবেন এবং ফ্রেমটা মিডিয়াম টু হাই রেখে আপনাদের ভাল করে খুব করে নিতে হবে।

প্রসেসটা আশা করি আপনারা নিশ্চয় বুঝতে পেরেছেন যে রকম বিভিন্ন ইউনিট টিপস আমিষের করেছি। এবার আমি আপনাদের আরও ধোসা বানিয়ে দেখাচ্ছি। আচ্ছা তার আগে ছোট্ট টিপস ধোসা তোলার আগে অতি অবশ্যই এইভাবে ভাল করে মিশিয়ে নেবেন।

যেহেতু চালের দানাগুলো নীচে থিতিয়ে যায় তাই এই ভাল করে মিশিয়ে নিলে তুলে নেওয়ার সময় শুধু জলটাই আপনারা পাবেন তাই প্রতিবারই ধোসা বানানোর আগে একবার এই ভাবে মিশিয়ে নেবেন আর ওই একই প্রসেস আমি ধোসা বানিয়ে নিচ্ছি ।

তাহলে রেসিপিটা নিশ্চয়ই দেখতে পেলেন কতটা সহজ বানানো আর কতটা স্বাস্থ্যকর ও বাচ্চাদের বা বড়দের ব্রেকফাস্ট বা টিফিনে জন্য এটা একদম পারফেক্ট রেসিপি। আশা করি এই সম্পূর্ণ রেসিপিটা আপনাদের নিশ্চয়ই ভালো লাগবে৷

ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন।

Leave a comment