চিংড়ি মাছের রেসিপি আলু দিয়ে দেখুন কত সহজ বানানো | chingri macher recipe in bangla |

চিংড়ি মাছের ঝোল আশা করি আপনারা অনেকবার বানিয়ে খেয়েছেন. কিন্তু কি পদ্ধতিতে বানালে চিংড়ি মাছটা ঠিক এরকম নরম হয়. আর কি দিলে স্বাদটা সব থেকে ভালো হয়? সেটাই আজকে আমি এই ব্লগতে আপনাদের করে দেখাবো. সাথে অবশ্যই থাকবে. অনেক টিপস অ্যান্ড ট্রিকস. আমি সেই পতনু.

আপনারা দেখ অতনু রান্নাঘর আর আজকে আমাদের রেসিপি চিংড়ি মাছের ঝোল. তাহলে চিংড়ি মাছের ঝোল বানানোর জন্য আমি এখানে নিয়ে নিয়েছি এক কেজি চিংড়ি মাছ. যেটা আমি ভালো করে ধুয়ে আগে থেকেই পরিষ্কার করে রেখেছি. আমি এখানে চিংড়ি মাছের মাথাগুলো বাদ দিয়ে দিয়েছি. আপনারা চাইলে রেখেও দিতে পারেন.

এবার এই চিংড়ি মাছ গুলোকে ম্যারিনেট করে নেওয়ার জন্য দিয়ে দিতে হবে স্বাদমতো নুন হাফ চা চামচ হলুদ গুঁড়ো হাফ চা চামচ কাশ্মীরি লঙ্কার গুঁড়ো আর সামান্য একটু লেবুর রস ব্যাস এবারই সবকিছুকে ভালো করে একবার মিশিয়ে নিন.

এবার এই চিংড়ি মাছের ঝোলটা বানানোর জন্য আপনাদের একটা পেস্ট এখানে বানিয়ে নিতে হবে আর পেস্টটা বানানোর জন্য লাগবে একটা চামচ কালো সরষে এক চা চামচ সাদা সরষে বা হলুদ সরষে সাথে আট থেকে দশটা কাজুর টুকরো আর প্রায় তিরিশ এমএল মতো সরষের তেল আচ্ছা এখানে একটা ছোট্ট টিপস আপনারা যদি এই সর্ষের সাথে কাজু আর এরকম সর্ষের তেল দিয়ে দেন তাহলে সরষেটা যতক্ষণই করুন না কেন কখনই তেতো হবে না.

আর যদি চান এটা বেশ অনেকদিন অব্দি রেখে দেবেন তাহলে এখানে কোন রকম জল ব্যবহার করবেন না ঠিক এরকমই প্রচুর টিপস এন্ট্রিক্স আমার বেসিক কুকিং কোর্সে যেটা নিয়ে আপনারা আপনাদের নিত্য প্রয়োজনীয় রান্না গুলোকে আরো ভালো করে করে নিতে পারবেন আর কোর্সটা কিনে নিতে চাইলে ভিজিট করতে হবে আমার নিজস্ব ওয়েবসাইট ডাবলু ডাবলু ডাবলু ডট ডেইলি এয়ারন ট্রিক ডট কমে.

এছাড়াও সরাসরি কল বা হোয়াটসঅ্যাপ করতে পারেন এই হেল্পলাইন এবার এর সাথে দিয়ে দিতে হবে একশ চামচ নুন আর সামান্য একটু জল যেহেতু এটা আমি এখনই ব্যবহার করবো এবার চিনি মাছগুলো ভেজে নেওয়ার জন্য আমি একটা কড়াইতে নিয়ে নিচ্ছি সর্ষের তেল আর তেলটা একটু গরম হয়ে গেলেই দিয়ে দেবো চিংড়ি মাছগুলো এবার আরো একটা টিপস.

যেটা আপনারা ফলো করবেন চিংড়ি মাছ গুলো নরম রাখার জন্য. সেটা হলো চিংড়ি মাছ গুলো দেওয়ার আগে গ্যাসের ফ্লেমটা ও তেলের টেম্পারেচারটা একদম হাই রাখবেন.

আধ্যাবার পঁচিশ থেকে তিরিশ সেকেন্ডের মধ্যেই এই চিংড়ি মাছ গুলোকে আপনাদের তুলে নিতে হবে. দেখবেন দেওয়ার সাথে সাথেই চিংড়ি মাছগুলো একটু লাল হয়ে যাবে.

ব্যাস ওর থেকে বেশি কালার যেন এই চিংড়ি মাছের মধ্যে না আসে. তা না হলে এই চিংড়ি মাছগুলো ঝুলে দেওয়ার পরে বেশ অনেকটাই শক্ত হয়ে যায়. আশা করি এই ছোটো ছোটো টিপসগুলো আপনাদের নিশ্চয়ই কাজে লাগবে.

এবার ওই একই তেলে ভেজে নিতে হবে আলুগুলো. এখানে আমি তিনটে মিডিয়াম সাইজের আলুকে এরকম ছোট ছোট করে কেটে নিয়েছি. আর আলুগুলো ভাজার সময় ক্যাসেট ফ্লেমটা লো টু মিডিয়াম রাখবেন. কারণ আলুগুলোকে এখানে প্রায় সিক্সটি পার্সেন্ট মত কোক করতে হবে.

আর যখনই এরকম হালকা হালকা কালার আসছে তখনি এটাকে তুলে নেবেন। এবার এই আলুগুলো ভাজা হয়ে গেলে আমি এখানে দিয়ে দিচ্ছি এক চা চামচ গোটা জিরে আর সাথে দিয়ে দেবো পেঁয়াজ কুচি, আমি এখানে দুটো মিডিয়াম সাইজের পেঁয়াজকে এইভাবে ভালো করে চপ করে নিয়েছি আর পেঁয়াজটা আপনারা ততক্ষণ বাঁচবেন যতক্ষণ না এটা একটু ব্রাউন হয়ে আসছে আরে প্রিয়া যখনি এরকম ব্রাউন হয়ে যায়.

তখন যদি এখানে আদা রসুন বাটা দিয়ে দেন তাহলেও জেনে রাখবেন পেঁয়াজটা খুব তাড়াতাড়ি গলে যায় আমি এখানে দু চা চামচ আদা রসুন বাটা দিয়ে দিলাম এখানে রসুনের পরিমাণটা বেশি রাখবেন. আর এইভাবেই কুক করে নেবেন. তিন থেকে চার মিনিট. অ্যাসিফ্ট ফ্লেমটা একদম লো করে. এরপর ঝালের জন্য দিয়ে দেবো কাঁচালঙ্কা. তারপর তিনটে মিডিয়াম সাইজের টমেটোকে আমি এইভাবে পুজো করে দিয়ে দিচ্ছি.

আপনার ছেলে এটাকে পেস্ট দিতে পারেন. এবার এই টমেটোটা যাতে তাড়াতাড়ি গলে যায় তার জন্য দিয়ে দিচ্ছি পরিমাণ মতো নুন. আর মশলা বলতে লাগবে রঙের জন্য হলুদ গুঁড়ো আর কাশ্মীরি লঙ্কার গুঁড়ো. এই দুটো ছাড়া আপনাদের কোন মশলা ব্যবহার করতে হবে না.

এবার এটাকে আপনাদের ততক্ষণ কোষিয়ে নিতে হবে. যতক্ষণ না টমেটো থেকে একদম কাঁচা গন্ধটা চলে যাচ্ছে. আর টমেটোটা একদম ভালোভাবে গলে যাচ্ছে.

টমেটোটা বেশ একদম পারফেক্টলি খুলে গেছে. আর মশলা থেকে তেলটাও ছেড়ে দিয়েছে. ঠিক এই স্টেজেই দিয়ে দেবেন সরষে আর কাজুর পেস্টটা. এবার আরো তিন থেকে চার মিনিট আপনাদের ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে.

গ্যারান্টি দিয়ে বলছি আপনি যদি এই সব প্রসেসগুলো ফলো করে রান্নাটা করেন এর স্বাদটা অসাধারণ হয়.

তাই একবার হলেও রিকোয়েস্ট করবো. রেসিপিটা ট্রাই করা. আর দু থেকে তিন মিনিট পরেই দেখবেন. তেলটা একদম. পারফেক্টলি ছেড়ে গেছে. ঠিক এই সময় দিয়ে দিতে হবে ভেজে রাখা আলুগুলো যেহেতু আলুগুলো সিক্সটি পার্সেন্ট কুক করা আছে তাই এই আলুগুলোকে আমাদের কুক করে নিতে হবে প্রথমে তাই জন্য মশলার সাথে একবার ভালো করে কোষিয়ে নিয়ে দিয়ে দিতে হবে পরিমাণ মতো জল তারপর আলুটা সেদ্ধ নেওয়া অব্দি ফুটিয়ে নিতে হবে আর আপনারা যদি আলুটাকে ফুল ডন করে ভেজে নিতেন সেক্ষেত্রে আলু গুলোর টেস্ট অতটা ভালো আসবে না.

তাই চেষ্টা করবেন আলুগুলোকে. এখানেই ভালো করে কুক করে নেওয়ার. আর যখনই দেখবেন এরকম সেদ্ধ হয়ে গেছে. দিয়ে দিতে হবে ভেজে রাখা চিংড়ি মাছগুলো. আর চিংড়ি মাছগুলো দেওয়ার পরে পাঁচ মিনিটের বেশি কিন্তু আপনারা ফোটাবেন না.

চার থেকে পাঁচ মিনিট ফোটালি দেখবেন চিংড়ি মাছগুলো একদম. পারফেক্টলি কুক হয়ে যাবে. আর এর ফ্লেভারটাও প্রেমীর সাথে খুব ভালোভাবে মিশে যাবে. আর ফাইনালি থেকে ফিনিশ করবেন ধনেপাতা কুচি দিয়ে. আশা করি সম্পূর্ণ রেসিপিটা আপনাদের নিশ্চয়ই ভালো লেগেছে. আর ভালো লাগলে প্রতি আমাকে কিন্তু কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না.

গরম গরম ভাতের সাথে এরকম চিংড়ি মাছের ঝোল হলে আশা করি আর কিছু লাগবে না.

ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন

1 thought on “চিংড়ি মাছের রেসিপি আলু দিয়ে দেখুন কত সহজ বানানো | chingri macher recipe in bangla |”

Leave a comment