চিকেন পাকোড়া রেসিপি। Chicken pakora recipe

এ রকম ক্রিস্পি আর এরকম জুসি চিকেন পকোড়া খেতে কার না ভালো লাগে মাত্র 10-15 মিনিট এই কোনওরকম বোনলেস চিকেনের ঝামেলা ছাড়াই একদম ঘরোয়া উপকরণ দিয়ে আমি যেটা আপনাদের করে দেখাব হয়।

Chicken Pakora Recipe

৫০০ গ্রাম হাড়সহ চিকেন

২ চা চামচ রুসুন বাটা

২ চা চামচ আদা বাটা

২ চা চামচ কাঁচালঙ্কা বাটা

১.৫ চা চামচ টক

দই

স্বাদমতো নুন

১ চা চামচ কাশ্মীরি লঙ্কা গুঁড়ো

১ চা চামচ হলুদ

১ চা চামচ গোটা ধনে

১ চা চামচ আজোয়ান

১ চা চামচ শুকনো কাসুরী মেথি পাতা

১/২ লেবুর রস

১ চা চামচ কর্ণফ্লাওয়ার

১ চা চামচ বেসন

১ টি ডিম

সাদা তেল ভাজার জন্যআজকে আমাদের রেসিপি চিকেন পকোড়া তাহলে চিকেন পকোড়া বানানোর জন্য সবার প্রথম আমি এখানে নিয়েছি প্রায় 500 গ্রাম মতো বলছিলেন আপনারা চাইলে এখানে বোনলেস চিকেন ব্যবহার করতে পারেন এবার তাতে দিয়ে দেবো প্রায় দু চামচ মতো রসুনবাটা আচ্ছা এখানে আমি বলে রাখি আপনারা হয়তো নিশ্চয়ই দেখতে পাচ্ছেন আমি চিকেনের সাইটগুলো নিয়েছি সেগুলো কিন্তু খুব বেশি বড় নয়।

বা খুব বেশি ছোটও নয়৷ দোকানে গিয়ে চিকেন পকোড়া সাইজ বলেই তাঁরা কিন্তু এইভাবে কেটে দেবে। তাহলে রসুন বাটা পরে আমি এখানে দিয়ে দেবো। প্রায় দু চামচ মতো আদাবাটা ঝালের জন্য দিয়ে দিচ্ছি। প্রায় দুই চামচ মতো কাঁচালঙ্কা বাটা আপনারা যেরকম ঝাল খান সেই অনুযায়ী এখানে দিয়ে দেবেন। এরপর দিয়ে দিচ্ছি দেড় চামচ টকদই।

এবার রঙের জন্য দিয়ে দেব কাশ্মীরি লঙ্কার গুঁড়ো আর হলুদ গুঁড়ো। এরপরের দুটি উপকরণ কিন্তু আপনারা নিশ্চই দেবেন। প্রথমটা হচ্ছে একটু ক্রাশ করে নেওয়া বা ভেঙে নেওয়া গোটা ধনে। আর দ্বিতীয়ত হচ্ছে একটু আজব আইন আর দেওয়ার আগে অবশ্যই কিন্তু একটু হাতেই ভাবে ঘষে নিয়ে দেবেন। তবে ফ্লেভারটা একটু ইনক্রিজ হয়ে যায়। আর সবশেষে দিয়ে দেবো একটু ড্রাই কাসুরি মেথি পাতা।

এ সব কিছুকে ভাল করে আমাদের মিশিয়ে নিতে হবে আর মেশানো হয়ে গেলে এটা আমরা দেখে দেব৷ প্রায় আরও 7-8 মিনিট মতো এটা ছিল আমাদের ফার্স্ট ম্যারিনেশন আর সেকেন্ড ম্যারিনেশনের জন্য 7-8 মিনিট পরে আমি আবার ম্যারিনেটেড চিকেন গুলো কে নিয়ে নিচ্ছি।

এবার এতে দিয়ে দিচ্ছি হাফ লেবুর রস।আর বাইন্ডিংয়ের জন্য দিয়ে দেব এক চা চামচ কর্নফ্লাওয়ার দুই চা চামচ বেসন।

আমি এখানে ডিম ব্যবহার করছি। টেস্ট আর টেক্সচারটা আরও সুন্দর করার জন্য আপনারা চাইলে কিন্তু এটাকে অ্যাওয়ার্ড করতে পারেন এবং সব কিছুকে একদম ফাইনাল একবার ভালো করে মিশিয়ে নেব আর মেশানো হয়ে গেলে একদম পারফেক্ট কী ভাবে ফ্রাই করবেন সেটা আপনাদের দেখাচ্ছি।

ফ্রাই করার জন্য আমি এখানে সাদা তেল নিয়েছি৷ আর তেলের টেম্পারেচার টা আপনাদের রাখতে হবে। কিন্তু একদম মিডিয়াম খুব বেশি গরমও নয়, আবার খুব বেশি যেন ঠান্ডা হয় এই চিকেনের পিসগুলো দিয়ে গরম তেলের উপর টীকা এক থেকে দুই সেকেন্ড এই ভাবে ধরে তারপর ছেড়ে দেবেন।

এভাবে করলে চিকেনের যে নীচের মাটি মেশানো থাকে সেটা একটু ফ্রি হয়ে যাওয়ার কারণে করার মধ্যে আর একেবারেই লাগবে না। ঠিক একই ভাবে আমি বাকি চিকেনগুলো ওই তেলের মধ্যে দিয়ে দিচ্ছি।

ফ্রাই করার সময় আমাদের গ্যাসের প্রেমটাকে কিন্তু লোটো মিডিয়াম রাখতে হবে। আমরা এখানে চিকেন টা সেদ্ধ করার জন্য কাজ করছি। ক্রিস্পি করার জন্য নয়।

এরকম কোনও ছোট চামচ বা কাঁটা চামচের মাধ্যমে চিকেন টাকে একটু উল্টেপাল্টে আপনার এই ভাবে ভেজে নিতে পারেন। 90 পারসেন্ট মতো ভাজা হয়ে গেলে যখন দেখবেন চিকেন বেশ সুন্দর কালার চলে এসছে জালের মাধ্যমে এই ভাবে চিকেনগুলো তুলে নিতে হবে।

আমি পেপার টাওয়েলের উপর এই চিকেনগুলোকে দিয়ে দিচ্ছি যাতে এক্সট্রা অয়েল শুষে নেয়। আপনারা পারলে এ রকম পেপার টাওয়েল বা যে কোনো সুতির কাপড়ের ওপরে চিকেনগুলোকে দিয়ে দিতে পারেন। এর সাথে খুব ইম্পরট্যান্ট টিপস আপনাদের সাথে ফের করছি সেটা হচ্ছে আপনার চিন্তা যখনই ফ্রাই করবেন চিকেনের যে এটা মেরিনেশন গুলো থাকে সেগুলো তেলের মধ্যে এ ভাবেই জমে থাকে৷

সেটা কিন্তু আপনার এই ব্যাপারটা ছাঁকনির মাধ্যমে ক্লিয়ার করতে ভুলবেন না। না হলে চিকেনগুলো দ্বিতীয়বার ফ্রাই করার সময় তেলটা কিন্তু অনেকটা কালো হয়ে যাবে। এ রকম ভাইব্র্যান্ট কালার টা কিন্তু আসবে না।

তাহলে চিকেনগুলো আমাদের ফাস্ট ফুডের মতো হয়ে গেল। আর এই সময় চিকেনগুলো কিন্তু একদম খুব ভালোভাবে সিদ্ধ হয়ে আছে।

আপনারা চাইলেই স্টেজে চিকেন গুলোকে এঁটে বক্সে রেখে ফ্রিজে রাখতে পারেন। সে দিন বা পরেরদিন চিকেন গুলোকে আবার তেলে ফ্রাই করলেই কিন্তু একদম গরম গরম পকোড়া রেডি হয়ে যাবে।

যেহেতু আমরা এখানে ইনস্ট্যান্ট বানাচ্ছি, তেল টাকে ভালো করে পরিস্কার করে নিয়ে চিকেনগুলোকে এর মধ্যে দিয়ে দিচ্ছি। চিকেন ভাল করে ক্রিস্পি করে নেওয়ার জন্য আচ্ছা এখানে আরও ছোট্ট টিপস আপনারা যখন এই সেকেন্ড ফাইল করার জন্য চিকেনগুলো তুলে দেবেন সেই সময়ে তেলের টেম্পারেচার টা যেন একদম মিডিয়াম থাকে কোনও ভাবেই যেন খালি না থাকে আর একবার সব ক টা চিকেন দেওয়া হয়ে গেলে তারপরে গ্যাসের ফ্লেম থেকে হাই করবেন।

তাহলে চিকেনগুলো খুব ক্যাজুয়ালি গরম হবে।এক থেকে দেড় মিনিট একটু হাই ফ্লেমে ভেজে নেওয়ার পরে দেখবেন বাড়ি থেকে ক্রিস্টির সাথে সাথে ভেতরটাও কিন্তু খুব খুশি হবে। আর এরকম সুন্দর কালার চলে আসলে জালের মাধ্যমে তুলে আমি বাটির মধ্যে নিয়ে নিচ্ছি। কারণ এর মধ্যে আমি দিয়ে দেবো। সামান্য চাট মশলা আর সেটাকে ঠিক এইভাবে একবার মিশিয়ে নেব।

তারপর একদম গরম গরম পরিবেশন করুন। যেকোনো সসের সাথে আমি একটু টমেটো কেচাপ আর একটু বার্লিন মিউনিখ নিয়েছি আমি এটাকে একদম সিম্পল ভাবে গার্নিশ করে নিচ্ছি। সামান্য কাঁচা পেঁয়াজ আর লেবু দিয়ে উপর থেকে ছড়িয়ে দেবো।

সামান্য চাট মশলা ও দেখে আশা করি আপনাদের খুবই ভাল লাগছে বটে রকম সহজ সিম্পল চিকেন পকোড়া আপনারা যে কোনও সময় বাড়িতে বানিয়ে নিতে পারবেন খুব খেতে ক্রিস্পি হয় আর দেখতেই পাচ্ছেন কতটা জোশী।

আর আশা করি এই রেসিপিটা আপনাদের নিশ্চয়ই ভাল লাগবে। যদি ভালো লেগে থাকে আমাকে কিন্তু প্রতি বারের মতো কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না।

Leave a comment